techowe.com https://www.techowe.com/2022/11/blog-post_26.html

গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো?

গেম খেলতে কে না ভালোবাসে? ভার্চুয়াল গেমিং বর্তমান প্রজন্মের কাছে একটি অত্যন্ত জনপ্রিয় মাধ্যম। প্রায় সকল বয়সের মানুষই তাদের অবসর যাপনের জন্য ভার্চুয়াল গেমিংকেই বেছে নিতে অত্যন্ত পছন্দ করে। তবে তরুণ প্রজন্মের কাছে এটি অত্যন্ত ফেভারিট একটা বিষয়। গেম খেলতে খেলতে অনেকেই বাইরের দুনিয়ার সবকিছু ভুলে যায়। কিন্তু এত ভালোলাগার একটি বিষয়ে যদি কোন বাঁধার সম্মুখীন হতে হয়, তাহলে সেটা অত্যন্ত যন্ত্রণাদায়ক। বন্ধুরা র‍্যামের পাশাপাশি আপনাকে সঠিক প্রসেসরটিও বেছে নেয়া গেমিং এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তাই আসুন দেখে নেই গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসরটি সবচেয়ে ভালো।

কোন Processor টি ভালো তা জানার আগে আমরা আসুন সংক্ষেপে জেনে নেই প্রসেসর আসলে কী কাজ করে বা প্রসেসরের কাজ কী।  প্রসেসর হলো কম্পিউটারের এমন একটি ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস যা কম্পিউটারকে পরিচালনার জন্য যা যা করা দরকার তার পূরোটাই এই প্রসেসর সম্পাদন করে থাকে। এটি প্রসেস করে বলে এর নাম প্রসেসর। একটি প্রসেসরকে আবার CPU ও বলা হয়ে থাকে। ধরুন আপনি একটি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্যে আপনার কম্পিউটারক একটি কমান্ড দিলেন এখন আপনার কম্পিউটার তা সম্পাদনের জন্য যা যা করে থাকে তা হলো প্রসেসরের কাজ। একটি প্রসেসরের সাথে গানিতিক যুক্তি, নিয়ন্ত্রক অংশ এবং মেমোরী জড়িত থাকে।

যাহোক বন্ধুরা, আমরা জানতে আগ্রহী যে আমাদের গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসরটি ভালো। আসলে গেম খেলার জন্য একটু হাই কনফিগারেশনের কম্পিউটার দরকার হয়। এখানে আপনার RAM একটু অতিরিক্ত হওয়া উচিত যা ন্যূনতম 8 থেকে 12 জিবি হলে ভাল।

বন্ধুরা সবার জন্য একটা সুখবর আছে যারা মূলত গেমিং এর জন্য ভালোমানের প্রসেসর চান। বর্তমানে ইন্টেল ১২ জেনারেশনের একটি প্রসেসর বাজারে নিয়ে এসেছে যেখানে আপনি পাচ্ছেন মূলত গেমিং এর সাপোর্টে সকল কম্পোনেন্ট। এই ১২ জেনারেশনের আপনি বাংলাদেশেই পাচ্ছেন Intel Core i5 12600K, Intel Core i7 12700KF,

Intel Core i7 12700K, Intel Core i9 12900K। এই প্রসেসরগুলিতে রয়েছে অসাধারন কিছু ফিচার যা আপনার গেমিং এক্সপেরিয়েন্সকে আরও বর্ধিত করবে। এখানে আমরা দুই ধরনের ফ্রিকোয়েন্সি পাব তা হলো বেজ ফ্রিকোয়েন্সি ও টার্বো ফ্রিকোয়েন্সি। আগেকার ভার্সনে এই দুই ধরনের পরিবর্তে একটি স্ট্যাটিক ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করা হত ফলে ফ্রিকোয়েন্সি বাড়ালে কম্পিউটার তাড়াতাড়ি গরম হয়ে যেত। কিন্তু এই ভার্সনে এই সমস্যার সমাধান হয়ে গেছে। দুই ধরনের ফ্রিকোয়েন্সি থাকার ফলে যখন ইউজার কোন ভারী কাজ করে তখন প্রসেসর তার ফ্রিকোয়েন্সি বাড়িয়ে দিয়ে অতিরিক্ত  গতির সঞ্চার করে এবং এই ভারী কাজ শেষ হওয়ার সাথে সাথে আবার এটাতে বেজ ফ্রিকোয়েন্সি চলে আসে। ফলে এটি সহজেই গরম হয়ে পড়ে না। আবার প্রসেসর গ্রাফিক্সের ক্ষেত্রেও একই ব্যপার কাজ করে।

তাই বন্ধুরা আপনারা যদি গেমিং প্রসেসর খুঁজে থাকেন তাহলে ১২ জেনারেশনের প্রসেসরগুলি আপনাদের জন্য সর্বোতকৃষ্ট। তাই বলে ১০ ও ১১ জেনাশনের দিয়ে আপনি যে গেমিং করতে পারবেন না তা নয়।

আপনাদের সবার গেমিং এক্সপেরিয়েন্স হোক সন্দর সাচ্ছন্দ্যময়।

গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো

বর্তমান এ অনলাইন গেমস অনেক বেশি জনপ্রিয়। এসব অনলাইন গেমস কোন ঝামেলা ছাড়াই খেলতে হলে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ একটি ভালো মোবাইল। যার র‍্যাম, প্রসেসর ডিসপ্লে ভালোমানের হতে হবে। এসবের মধ্যে আবার প্রসেসর ভালো হলে লাগামহীন গেম খেলা যায়। বাজারে অনেক গেমিং ফোন আছে। সেগুলোর মধ্যে থেকে আপনার বাছাই করে সত্যি কঠিন। গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো?

আপনারা যারা অনলাইন এ গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো এ বিষয়ে জানতে চাচ্ছেন আজকের আর্টিকেলটি তাদের জন্যই। আজকের আর্টিকেল টি পুরো পড়লে আপনারা গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো তা জানতে পারবেন। তো চলুন জেনে নেয়া যাক এ সম্পর্কে।

প্রসেসর সম্পর্কিত কিছু তথ্য

প্রসেসর সাধারণত কম্পিউটারে ব্যবহৃত হয়। মোবাইল ফোনে আলাদা কোনো প্রসেসর দেওয়া নেই। ফোনে ব্যবহার করা হয় চিপসেট। সেখানে প্রসেসর চিপ, গ্রাফিক্স চিপ, রেডিও চিপ বিদ্যমান থাকে। মোবাইলের পারফরম্যান্স নির্ভর করে এই চিপ সেটের ওপর। তাই গেমিং ফোন কেনার সময় সবচেয়ে ভালো চিপসেটযুক্ত ফোন কেনা জরুরি। গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো তা জানার আগে জেনে নেওয়া যাক চিপসেট কি?

কিছু জনপ্রিয় চিপসেট এর তালিকা

গেমিং এর জন্য উপযুক্ত মোবাইল ফোন গুলোতে ব্যবহৃত কিছু জনপ্রিয় চিপসেট গুলো হলো-

  • এ ১৩ বায়োনিক
  • এ ১২ বায়োনিক
  • এ ১৫ বায়োনিক
  • মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি 920
  • স্নাপড্রাগন ৮৫৫
  • এক্সিনস ৯৮২০
  • স্নাপড্রাগন ৮৪৫
  • কিরিন ৯৮০

কিন্তু উল্লেখ্য যে, এই চিপ সেট সহ ফোনের দাম তুলনামূলকভাবে বেশি।

এ ১৩ বায়োনিক

এটি একটি অত্যন্ত শক্তিশালী প্রসেসর। এই প্রসেসরটি অ্যাপল তৈরি করেছে। এটি একটি 64 বিট ARM ভিত্তিক চিপসেট। এর ক্লক স্পিড 2.64 GHz। এটি বর্তমানে গেমিংয়ের জন্য সেরা চিপসেট। এই চিপসেটটি iphone 11, iphone 11 pro max-এ ব্যবহৃত হয়। এর পারফরম্যান্স A12 বায়োনিকের তুলনায় 30% কম পাওয়ার খরচ সহ 20% দ্রুত চলে। আপনার যদি গেমিংয়ের জন্য সেরা প্রসেসর সহ একটি ফোনের প্রয়োজন হয় তবে আপনি A13 Bionicবায়োনিক যুক্ত ফোন কিনতে পারেন।

এ ১২ বায়োনিক

বায়োনিক ১২ ও একটি শক্তিশালী প্রসেসর। এই প্রসেসরটিও অ্যাপল তৈরি করেছে।। এটি 64 বিট এর ARM ভিত্তিক প্রসেসর। এটির ক্লক স্পিড 2.49 GHz. এটি গেমিং এর জন্য ভালোমানের একটি প্রসেসর। এটি iphoneXs, iphoneXs max এ ব্যবহার করা হয়েছে। এটি কম পাওয়ার ব্যবহার করে ভালো পারফরম্যান্স দিতে সক্ষম।

এ ১৫ বায়োনিক

আইফোনের লেটেস্ট ভার্সনের স্মার্টফোন আইফোন ১৪ এ ১৫ বায়োনিক প্রসেসর বিদ্যমান। এই প্রসেসরটি অনেক শক্তিশালী। শুধু আইফোন ১৪ নয় আইফোন ১৩ ও এই একই প্রসেসর বিদ্যমান। এই প্রোসেসরের স্টাবিলিটি অনেক ভালো। যা আপনাকে গেমিং এ অনেক ভালো একটা এক্সপেরিয়েন্স দিবে।

মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি 920

MediaTek Dimension 920 মিডিয়াটেকের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী প্রসেসর। বর্তমানে অনেক ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন এই প্রসেসরে ব্যবহার করা হচ্ছে। এটি একটি 5G প্রসেসর। এই প্রসেসরটি মূলত ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হয়। তাই এসব স্মার্টফোনের দাম তুলনামূলক অনেক বেশি। কিন্তু কম বাজেটে বা মিড-রেঞ্জ বাজেটে মিডিয়াটেকের P/G সিরিজের প্রসেসর ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫

স্ন্যাপড্রাগন 855 একটি উচ্চ-পারফরম্যান্স 64-বিট ARM LTE সিস্টেম যার চিপটি কোয়ালকম  ডিজাইন করেছে। এর ক্লক স্পিড 1.8 GHz থেকে 2.42 GHz. এই চিপসেট এর গেমিং পারফরম্যান্স ও অনেক ভালো। এই প্রসেসরটি-

Samsung Galaxy S10 সিরিজ

  • Asus Zenfone 6
  • OnePlus 7 সিরিজ
  • Samsung Galaxy Note 10 সিরিজ
  • Xiaomi Mi 9T
  • ZTE Axon 10
  • Oppo Reno 10x Zoom
  • Sony Xperia 1 and 5

এসব মোবাইল ফোন এ ব্যবহার করা হয়েছে। গেমিং এর ক্ষেত্রে তাই এসব ফোন ভালো পারফরম্যান্স দিতে পারে।

এক্সিনস ৯৮২০

 স্যামসাং এর ডিজাইনকৃত এক্সিনস ৯৮২০ উচ্চ পারফরম্যান্স যুক্ত 64 বিট। এ প্রসেসরটির ক্লক স্পিড 1.7 GHz থেকে 2.7 GHz. এটির গেমিং পারফরম্যান্স ও অনেক ভালো। এই প্রসেসরটি –

  • Samsung Galaxy S10
  • Samsung Galaxy S10 5G
  • Samsung Galaxy S10+
  • Samsung Galaxy S10e

এসব ফোন এ ব্যবহার করা হয়েছে। তাই এক্সিনস ৯৮২০ প্রসেসর যুক্ত ফোন কিনতে হলে এই ফোন গুলো কিনতে পারেন।

স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫

স্ন্যাপড্রাগন ৮৪৫ এটিও 64 bit এর একটি উচ্চ পারফরম্যান্স যুক্ত চিপসেট। এর ক্লক স্পিড 2800 MHz. এটির গেমিং পারফরম্যান্স অনেক ভালো। এই প্রসেসরটি –

  • LG V40 ThinQ 420267
  • Xiaomi Mi 8 409821
  • Xiaomi Mi Mix 2S 409614
  • Xiaomi Mi 8 Pro 408702
  • Xiaomi Mi Mix 3 407073
  • OnePlus 6T 404152
  • Xiaomi Pocophone F1 401646
  • Sony Xperia XZ2 Compact 399683
  • OnePlus 6 398580
  • ZTE Axon 9 Pro

এসব ফোন এ ব্যবহার করা হয়। ফলে এসব ফোন এর গেমিং পারফরম্যান্স অনেক ভালো হয়ে থাকে।

শেষ কথা

আপনারা পুরো আর্টিকেলটি পড়ে অনেকগুলো গেমিং ফোন এর প্রসেসর সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আরও জানতে পেরেছেন গেমিং এর জন্য কোন প্রসেসর সবচেয়ে ভালো। এখন আপনারা আপনাদের প্রয়োজন ও সাধ্যমত নিজেদের জন্য কোন প্রসেসর যুক্ত ফোন কেনা উচিৎ তা ঠিক করতে পারবেন।

আমাদের আর্টিকেলটি পড়ে ভালো লেগে থাকলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। এ সম্পর্কে আপনাদের কোন মতামত বা প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। আরও এমন তথ্যবহুল আর্টিকেল পেতে আমাদের ওয়েবসাইট টি নিয়মিত ভিজিট করুন। আমরা নিয়মিত এমন আর্টিকেল পাবলিশ করে থাকি। ধন্যবাদ।

 ভালো থাকুন, ভালো রাখুন। শুভকামনা নিরন্তর।



অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

নটিফিকেশন ও নোটিশ এরিয়া